প্রচ্ছদ রান্না মারিয়া রাঁধে ভিন্ন স্বাদে

মারিয়া রাঁধে ভিন্ন স্বাদে

0

বিপাশা রায় |: ‘একটা মজার বিষয় কি জানেন? দু-তিন বছর আগেও রান্নার কথা শুনলেই জ্বর আসত আমার৷ তবে এখন এমনও হয় কাজ শেষে হয়তো রাত দেড়টায় বাসায় ফিরেছি৷ তার পরেও সোজা ঢুকে গেছি রান্নাঘরে৷’ এ কথায় বোঝা গেল মডেল ও উপস্থাপিকা মারিয়া নূর রান্নাবান্নাটা এখন বেশ পছন্দই করেন।

মজার মজার রান্না করাটা শিখেছেন ইউটিউব দেখেরান্নার প্রতি যে মারিয়ার এই ভালোবাসা, তার পুরো কৃতিত্ব তিনি দিলেন ইউটিউবকে। কারণ—এই ওয়েবসাইটে মজার মজার সব খাবার তৈরির ভিডিও দেখে তিনি আগ্রহী হয়ে ওঠেন রান্নায়। তিনি বলেন, ‘যত ব্যস্ততা থাকুক না কেন বাসার রান্নাটা নিজ হাতেই করি। চিজি পাস্তা, পিৎজা অথবা মুরগির যেকোনো পদ বেশ ভালোই রাঁধতে পারি।’ যেকোনো বিশেষ দিনে চেনা রান্নায় ভিন্ন স্বাদ যুক্ত করে আনন্দ পান মারিয়া৷ এই যেমন দু-তিনটা রেসিপিকে একসঙ্গে করে ‘ফিউশন’ রান্না তৈরি করে ফেলেন।
এবারের ঈদেও নতুন কিছু রান্না করে অতিথিদের চমকে দেওয়ার পরিকল্পনা চলছে এখন থেকেই৷ মারিয়া বলেন, ‘ঈদে এবার ঢাকাতেই থাকব। প্রচুর বন্ধুবান্ধব রয়েছে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত সবাই দলবেঁধে আমার বাসায় আসবে৷’ বন্ধুদের নিজের হাতের রান্না খাইয়েই আপ্যায়ন করবেন মারিয়া নূর। তাঁর রান্নার সবচেয়ে বড় ভক্ত বন্ধু নাবিলা৷ মারিয়া বলেন, ‘প্রতি ঈদেই ওর জন্য বিশেষ একটা কিছু করার চেষ্টা করি৷’  পাঠকদের জন্য ঈদের দিন রাঁধতে পারেন, এমন তিনটি খাবারের রেসিপি দিলেন মারিয়া নূর৷

 

খাসির বিরিয়ানিখাসির বিরিয়ানি
উপকরণ: বাসমতি চাল আধা কেজি, খাসির মাংস আধা কেজি, কাটা পেঁয়াজ আধা কাপ, আদা বাটা দেড় চা-চামচ, রসুন বাটা দেড় চা-চামচ, জায়ফল গুঁড়া আধা চা-চামচ, জয়ত্রী গুঁড়া আধা চা-চামচ, টক দই সোয়া কাপ, সাদা গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, গরম মসলা গুঁড়া আধা চা-চামচ, জিরা গুঁড়া আধা চা-চামচ, পেস্তা বাদাম ১০টি, আলু মাঝারি করে কাটা ২টি, তেজপাতা ৩টি ও তেল পরিমাণমতো।
প্রণালি: কাটা পেঁয়াজ ও টক দই বাদে বাকি সব মসলা খাসির মাংসের সঙ্গে মিশিয়ে আধা ঘণ্টা মেরিনেট করে রাখতে হবে৷ এরপর হাঁড়িতে ১৫০ মিলিলিটার তেল দিয়ে তাতে কাটা পেঁয়াজ দিয়ে দিন। পেঁয়াজ ভাজা হয়ে এলে মেরিনেট করা মাংসে ঢেলে দিন৷ এবার তিনটা তেজপাতা দিয়ে একটু ভেজে নিন৷ আট মিনিট পর টক দই দিয়ে মাংস ভালো করে কষিয়ে নিন৷ এরপর পরিমাণমতো পানি দিয়ে মাংস সেদ্ধ করুন। মাংস সেদ্ধ হয়ে এলে তা উঠিয়ে রেখে মসলার হাঁড়িতে এক কেজি পানি জ্বাল দিন। এবার এতে চাল দিয়ে দিন। অন্য আরেকটি কড়াইয়ে তেল গরম করে কাটা আলুগুলো ভালো করে ভেজে নিন। চাল মোটামুটি সেদ্ধ হয়ে এলে ভাজা আলু ও মাংস দিয়ে হাঁড়িটি ঢেকে দিন। ১০-১৫ মিনিট পর বেরেস্তা ও পেস্তা বাদাম দিয়ে নামিয়ে নিন।
মাদ্রাজ কারিমাদ্রাজ কারি
উপকরণ: গরুর মাংস কিউব করে কাটা ১ কেজি, ধনে গুঁড়া ২ টেবিল চামচ, জিরা গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, হলুদ ১ টেবিল চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া ২ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, আদা বাটা ২ চা-চামচ, রসুন বাটা ২ চা-চামচ, লেবুর রস ৩ চা-চামচ, অলিভ অয়েল ২ টেবিল চামচ, টমেটো বাটা ২ টেবিল চামচ ও লবণ স্বাদমতো৷
প্রণালি: সব মসলা একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন৷ এবার চুলায় বড় পাত্র বসিয়ে এক টেবিল চামচ তেল গরম করে নিন৷ গরম তেলে লবণ ও টমেটো বাটাসহ মাংস দিন৷ তিন মিনিট রান্না করে মাংস নামিয়ে নিন৷ বাকিটা তেলে মসলার পেস্ট দিয়ে মাঝারি আঁচে কষিয়ে নিন৷ কষানো হলে মসলায় মাংস দিয়ে দিন৷ এবার সামান্য পানি দিয়ে প্রায় ৪৫ মিনিট কম আঁচে রান্না করুন৷ মাখা মাখা হয়ে এলে নামিয়ে নিন৷
বিফ নাগেটবিফ নাগেট
উপকরণ: হাড় ছাড়া গরুর মাংস (চাংক থেকে পাতলা টুকরো করে কাটা) আধা কেজি, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, সয়া সস ৪ টেবিল চামচ, ময়দা ১ কাপ, বেকিং পাউডার ১ চা-চামচ, সাদা গোল মরিচ ও লবণ স্বাদমতো৷
প্রণালি: গরুর মাংসের টুকরাগুলো আদা বাটা, রসুন বাটা ও সয়া সস দিয়ে ২ থেকে ৩ ঘণ্টা মেরিনেট করে রাখুন৷ এরপর হ্যামার দিয়ে এমনভাবে কেচে নিন, যাতে মাংসের টুকরাগুলো একদম পাতলা হয়ে যায়। এবার একটি পাত্রে ময়দার সঙ্গে বেকিং পাউডার, সাদা গোলমরিচ আর পরিমাণমতো লবণ মিশিয়ে নিন। মাংসের টুকরাগুলো এই মিশ্রণে ভালো করে মেখে ডুবোতেলে ভেজে নিন।

পূর্ববর্তী নিবন্ধমাংসের জম্পেশ পদ
পরবর্তী নিবন্ধকীভাবে বানাবেন গ্রিন চাটনি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here