প্রচ্ছদ ধর্ম মসজিদে নারীদের নামাজ

মসজিদে নারীদের নামাজ

489
0
ফাতেমা তুন-নূর শিপু : মসজিদে গিয়ে নারীদের নামাজ আদায়ের প্রসঙ্গ এলেই, আলেমরা ফতোয়া দেন এটা ঠিক নয়। বিভিন্ন যুক্তি দিয়ে কোরআন-হাদিসের আলোকে পর্দার বিষয় তারা বর্ণনা করতেন। এতকিছু না করে একটা যুক্তিসঙ্গত বিষয় আনা ভীষণ জরুরি। একে তো মহিলারা নানারকম দৃষ্টিকটু পোশাকে রাস্তায় ঘোরাফেরা করেন তারপর পর্দা কিংবা পোশাকের অজুহাতে বাইরে নামাজ পড়ার কথা কল্পনা করেন না। নামাজের ওয়াক্ত হলে অবহেলা আর কাজা পড়ার অজুহাত দেখান। সকালে বাইরে বের হলে কোথায় নামাজ পড়ব তার একটা অজুহাত দেখিয়ে জোহর, আসর, মাগরিবের সময় পার করে দিচ্ছেন অনায়াসে। সবশেষে এশারের সময় বাসায় এসে ক্লান্ত-শ্রান্ত হয়ে বলেন, এতগুলো নামাজ কীভাবে পড়ব? তারপর হয়তো বা খুব বেশি যাদের নামাজ পড়ার তাগিদ আছে তারা এশার নামাজটা পড়ল, কাজাটা আল্লাহ মাফ করবেন বলে অবহেলা করে গেলেন। এ জন্যই মসজিদের শহর ঢাকায় মহিলাদের সঠিক সময়ে নামাজ পড়ার জন্য ব্যবস্থা রাখাটা ভীষণভাবে জরুরি। তাতে করে তারা লজ্জায় নামাজের জন্য হলেও শালীন পোশাকে বের হওয়ার প্রয়োজন বোধ করতেন। যারা পর্দা হিজাব করে বের হন তাদের মর্যাদার চোখে দেখতেন সবাই। প্রশ্ন করতেন না যে, আপনাদের এমন বোরকা পরে ঢেকে বের হতে সমস্যা হয় না, গরম লাগে না, পর্দা তো মনেই আবার এমন করে হাত-পা-মুখ ঢেকে বের হওয়ার প্রয়োজন কী? এমন সব অবাস্তব প্রশ্ন করতেন না। একে অন্যকে নিজেরা তো অত্যাধুনিকতার নামে আদিম যুগের পোশাক পরে বের হতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন, আবার যারা শালীন পোশাক পরেন তাদের বিব্রত করেন, আপত্তিকর প্রশ্ন করেন। মসজিদে নারীদের নামাজের ব্যবস্থাটা যদি করা যেত তা হলে বাংলাদেশের মহিলারা আজানের সঙ্গে সঙ্গেই বা পুরুষদের নামাজের পর হলেও ঘরের বাইরে থাকলে নামাজ আদায় করতে পারতেন। মহিলাদের জামাতের সঙ্গে নামাজ পড়াটা জরুরি নয়। যথাসময়ে নামাজ পড়াটা জরুরি। তাই যেখানেই মসজিদ থাকবে মহিলারা সেখানে নামাজ পড়ে নেবেন, তাতে কিছুটা হলে পোশাক বা পর্দা প্রথার ব্যাপারে সতর্ক হবেন। আজকাল প্রতিটি কাজে মহিলারা ঘর থেকে বের হচ্ছেন সময়ে-অসময়ে, অপ্রয়োজনেও। তাদের নামাজের প্রতি যত্নশীল হতে অভ্যস্থ করাতে হবে। এটা তখনই সম্ভব যখন প্রতিটি মসজিদে মহিলাদের নামাজের সুব্যবস্থা থাকবে। যারা বাইরে নামাজ না পড়ে গিবত-পরচর্চা করে সময় কাটান তাদের একটা সময় এমন আসবে যারা নামাজ পড়ে তাদের দেখে চক্ষুলজ্জায় হলেও মসজিদে নামাজের জন্য যেতে মন চাইবে। এতে করে দেশের নারীসমাজ আদর্শ মা হিসেবে গড় উঠবে। আর একজন আদর্শ মাই গড়ে দিতে পারেন একটি উন্নত জাতি। আল্লাহতায়ালা আমাদের হেদায়েত দিন।