প্রচ্ছদ ফ্যাশন চুলের সাজে অলঙ্কার

চুলের সাজে অলঙ্কার

3239
0
নিপা আহমেদ: খোঁপার সাজে আদিকাল থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে ফুল। তবে ফুলেই সীমাবদ্ধ ছিল না চুলের সাজ। খোঁপা বা বেণীতে তখনো মেয়েরা ব্যবহার করত নানারকম কিপ, খোঁপার বাহারি সব কাঁটা, এ ছাড়া টিকলি, টায়রা, ঝাপটা, মুকুট, নেটের তৈরি খোঁপার জালি, ধাতব টার্সেল, খোঁপার ঝুমকা এগুলোও ছিল নারীর চুলের সাজের বাহারি অলঙ্কার, যা স্বর্ণ, রুপা ও নানারকম মেটালে তৈরি করা হতো। এ ছাড়াও পাথর, মুক্তাখচিত নানারকম ডিজাইনে তৈরি এসব গয়না চুলের সাজে ব্যবহার করা হতো।
এসব পুরনো অলঙ্কার এখন ফিরে এসেছে নতুন করে। আগে যেমন শুধু খোঁপাতে ব্যবহৃত হতো এখন তা দেখা যাচ্ছে বেণী, পনিটেল এমনকি খোলা চুলেও। পার্টি সাজ, কনের সাজ কিশোরী, তরুণী সবাই এসব চুলের সাজের গয়না ব্যবহার করছে। খোঁপা, বেণী ও পনিটেলে আজকাল নানারকম চুলের গয়না ব্যবহার হয়। কানের টানা থেকে শুরু করে পার্টি খোঁপায় আজকাল নানা ধরনের খোঁপার কাঁটা, কিপের চল দেখা যায়, যা যেকোনো পোশাকের সাথেই মানানসই।

 

সিঁথিপাটি, টিকলির সাথে এখন রাজস্থানী মাথার টিকা, কুন্দনের সিঁথিপাটি তরুণীদের পছন্দ। এগুলো স্বর্ণ, রুপা, বিভিন্ন রঙের পাথরখচিত কিংবা মুক্তা, পুঁতির তৈরিও হয়ে থাকে। খোঁপা বা বেণীতে যেসব গয়না এখন মেয়েরা ব্যবহার করছে তার মধ্যে রয়েছে খোঁপার ফুল, বেণীর টার্সেল, চুলের ব্রোচ, ঝাপটা, খোঁপার চিরুনি, একপাশে পরার টায়রা, ছোটা মুকুটের ডিজাইনের কিপ, কানের দুলের সাথে সংযুক্ত খোঁপার টানা ইত্যাদি।
লম্বা বেণী ও ঢিলেঢালা বেণী করেও বসানো যেতে পারে বেণীর টার্সেল, ফুল বা কাঁটা। লম্বা কামিজ বা গাউনের সাথে খোঁপা করে গুঁজতে পারেন এসব ঝুমকা কাঁটা। অতীত এবং নতুন ফ্যাশনের মিশ্রণে বিভিন্ন রকমের চুলের বেণী ও খোঁপার কাঁটা এখন দেখা যাচ্ছে, যার মধ্যে আছে পোলকি ডিজাইনের রাজস্থানী ডিজাইনের চুলের কাঁটা, যা মুক্তা কুন্দন ও পাথরখচিত। লম্বা বেণীর জন্য চলছে ওপর থেকে নিচ পর্যন্ত হেয়ার পিন, যা বিভিন্ন আকৃতির ও ডিজাইনের হয়ে থাকে। রয়েছে চেন সংযুক্ত খোঁপার ফুল, নানারকম চুলের কিপ পাবেন যেগুলো সালোয়ার-কামিজ, পাশ্চাত্য পোশাক কিংবা শাড়ি, লেহেঙ্গার সাথে মানানসই।
বিভিন্ন মোটিভ ও মেটালে তৈরি এসব কিপ খুবই আকর্ষণীয়, যা চুলের সৌন্দর্যকে বাড়িয়ে দেয়। আধুনিক সাজ পোশাকের সাথে পুরনো ধাঁচে চুল বেঁধে তার ফাঁকে দিতে পারেন মেটালের ছোট ফুল বা পার্লের কাঁটা। আকৃতিতে বড় পাশার মতো দেখতে ফুলও পাবেন। আরো নানারকম বৈচিত্র্য আছে, যেমন ঝুমুর পাশা, যা বড় আকৃতির চার পাশে পাথর বসানো কিংবা কারুকার্য খচিত, খোঁপার ঝুমকা যা মুক্তা, পাথর, পুঁতিখচিত কানের দুলের মতো অনেকটা হুক টাইপ খোঁপার ফুল। এগুলো স্বর্ণ, রুপা বা স্বর্র্ণের রঙ করা হয়ে থাকে। খোঁপা সাজাতে আরো অনুষঙ্গের মধ্যে আছে খোঁপার চিরুনি। অতীতের ডিজাইনের সাথে এখন নানারকম ডিজাইন সংযুক্ত করে নতুন ফ্যাশনে এসেছে চুলের বিভিন্ন অনুষঙ্গ। যেমন চেন সংযুক্ত খোঁপার চিরুনি। সোনালি, রুপালি, মেটাল, বিভিন্ন রঙের বৈচিত্র্য এসেছে এই চুলের অনুষঙ্গগুলোতে। ছিমছাম নকশায় শাড়ির সাথে সাজে জমকালো ভাব আনতে চুলের খোঁপার সাথে টানা সংযুক্ত কানের দুল বেশ মানানসই। স্টোন, স্বর্ণ, রুপার তৈরি এসব টানাযুক্ত কাঁটা সব বয়সী মহিলা পরতে পারেন।
আধুনিক সাজ পোশাকের সাথে পুরনো ঐতিহ্যের মিল রেখে অনেকে বেণীতে পরেন চোটি, যা লম্বা বেণী লেসের মতো বিভিন্ন ধাতব উপাদান দিয়ে নকশাখচিত অলঙ্কার। তারপর আছে বেণী পাটি। এসব আজকাল গায়ে হলুদে কনে এবং অন্য মেয়েদের ব্যবহার করতে দেখা যায়। নাচের পোশাকের সাজগোজের সাথে এসব অনুষঙ্গ ব্যবহার হয়ে থাকে।
চুলের স্টোন টাইপ ঝাপটা, ঝুমুর, টায়রা, মাথার কিপ চুলে খোঁপা করে ফুল লাগিয়েও এ ধরনের অনুষঙ্গ একসাথে ব্যবহার করলে ভালো দেখাবে। পোশাক এবং গয়না বেশ ভারী না হলে চুলের সাজে নানারকম কিপ, ব্যান্ড ব্যবহার করতে পারেন।
নানা মোটিভের কিপ, লম্বা, ত্রিকোনা, চৌকোনা, গোল বিভিন্ন আকৃতি ও নকশায় এসব কিপ, ব্যান্ড সব পোশাকের সাথেই মানানসই। রঙবেরঙের পাথরখচিত নানা ধাতব উপাদানে তৈরি এসব অনুষঙ্গ দামেও সাশ্রয়ী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here