প্রচ্ছদ প্রবন্ধ করোনা মোকাবিলায় সরকার প্রদত্ত নির্দেশনাবলী মেনে চলি!

করোনা মোকাবিলায় সরকার প্রদত্ত নির্দেশনাবলী মেনে চলি!

88
0
মুহাম্মদ শরীফুজ্জামান: করোনা পরিস্থিতিতে এক কঠিন সময় পার করছি আমরা সকলে। এমন কঠিন সময় মোকাবিলার জন্য কারো কোন আগাম প্রস্তুতি ছিলনা। বিশেষ করে ঘাতক যখন অদৃশ্য তখন তার ভয়ানক থাবা থেকে প্রাণ বাঁচানো খুবই কঠিন। তাইতো আজ বিশ্বের প্রায় সবকটি দেশের মানুষ আতঙ্কগ্রস্ত। দেশে দেশে লাশের মিছিল দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্যমতে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৩৯, মৃতের সংখ্যা ৭২ হাজার ৬৩৮ জন।
তাই স্বাভাবিক ভাবেই কেমন করে মোকাবিলা করা যায় এই কঠিন সময়কে এমন প্রশ্ন সবার মনে অজান্তেই উঁকি দিচ্ছে। আসলে যে করোনাভাইরাসের কারণে আজ আমরা এই কঠিন পরিস্থিতির শিকার সেই করোনাভাইরাসের এখনো কোন ভ্যাকসিন আবিস্কার হয়নি তাই এই প্রশ্নের ও কোন সঠিক উত্তর কারো কাছে নেই। তবে সময়োপযোগযোগী কিছু পরামর্শ বা নির্দেশনাবলী আমরা সরকার বা এসব বিষয় নিয়ে যারা এই মুহূর্তে গবেষণায় আছেন তাদের কাছ থেকে পেতে পারি, যা তাঁরা ইতোমধ্যে আমাদের দিচ্ছেন। তা থেকে আমরা উপকৃত ও হচ্ছি। আর না হলে ইতোমধ্যে এই ভাইরাসের সংক্রমণ আরো ভয়াবহ হতো, এর বিস্তার রোধকে নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হতো না।

আমরা জানি যে চীন দেশ থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি সেই চীন দেশ এই ভাইরাসের মোকাবিলায় এখন অনেকটা সফল। করোনার কোন ভ্যাকসিন এখনো বাহির হয়নি তারপরও এই পরিস্থিতি ইতোমধ্যে তারা নিয়ন্ত্রণের ভিতরে নিয়ে এসেছে। ইউরোপেরও অনেক দেশের পরিস্থিতি তাদের অনেকটা নিয়ন্ত্রণের ভিতরে আবার অনেক দেশের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসতে শুরু করেছে এমনটা দেখা যাচ্ছে। তার জন্য সে সব দেশের জনগণকে অনেক ত্যাগতীতিক্ষা স্বীকার করতে হচ্ছে।

প্রশ্ন আসতে পারে আমাদের মতো ঘনবসতি দেশে কোন ভ্যাকসিন আবিস্কার ছাড়া কি সম্ভব এই পরিস্থিতি মোকাবিলা করা? আসলে সম্ভব। আমরা যদি সরকার প্রদত্ত নির্দেশনাবলী মেনে চলি আর নিজে সতর্ক হই তাহলে অবশ্যই সম্ভব। আসলে সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা ছাড়া এমন ভয়ানক পরিস্থিতির মোকাবিলা করা সম্ভব না। এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকার ও জনগণকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। একে অন্যকে সাহায্য করতে হবে।

গরীব মানুষকে রাস্তায় নামিয়ে নিজে চারদেয়ালের ভিতরে এসি রুমে বন্দি অবস্থায় থাকলে করোনা থেকে মুক্তি পাবেন বলে যারা ভাবছেন, তারা আসলেই ভুল স্বপ্নে বিভোর হয়ে আছেন। ইতোমধ্যে আমরা দেখেছি বৃটেনে প্রিন্স চার্লস, প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন সহ সরকারী উচ্চপদস্থ অনেকেই আক্রান্ত হয়েছেন। অন্যান্য দেশেও উচ্চ পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এমন খবর পত্রিকায় শিরোনাম হয়েছে।

আপনি যে খাবারটি খাবেন সেটাও তো কোন সুপার মার্কেট থেকে যাবে। যেখানে কোন গরীব মানুষ কর্মরত আছে। আপনাকে সেই খাবারের ডেলিভারিটিও কোন গরীব মানুষ দিবে। তাই সে আক্রান্ত হলে আপনি কিভাবে বাঁচবেন! এই কঠিন পরিস্থিতে শুধু নিজে বাঁচার কথা চিন্তা করলে হবেনা অন্যকেও বেঁচে থাকতে সাহায্য করতে হবে। লাশের গন্ধে বাতাস ভারী হবার আগে যার যার অবস্থান থেকে পরিস্থিতি মোকাবিলায় সর্বাত্মক সহযোগিতা করতে হবে। সরকারের পাশাপাশি ধনীদের গরীবের দিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। নিজে সতর্ক থাকার পাশাপাশি সবাইকে সরকার প্রদত্ত নির্দেশনাবলী মেনে চলতে হবে।

আল্লাহ সবাইকে হেফাজতে রাখুন।

সম্পাদক : ক্রিকেট সংবাদ।