প্রচ্ছদ ইমিগ্রেশন ১১,০০০ সিগনেচার, তারপরেও হোম অফিস জানালো ব্রিটিশ ভিসা অফিস ভারতেই থাকবে

১১,০০০ সিগনেচার, তারপরেও হোম অফিস জানালো ব্রিটিশ ভিসা অফিস ভারতেই থাকবে

569
0
SHARE

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ- লন্ডন থেকে

দিল্লীতে ব্রিটিশ ভিসা অফিস ঢাকা হতে স্থানান্তরের পর ব্রিটেন সহ বিশ্বের সকল স্থানের প্রবাসী বাংলাদেশীদের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ ও দেন দরবার হতে থাকে। নানা ফোরাম, সমিতি, সংগঠণের পক্ষ হতে দাবী উত্থাপিত হতে থাকে ভিসা অফিস আবারো ঢাকায় স্থানান্তরের জন্য। ব্রিটেন প্রবাসী বাংলাদেশী বিশেষ করে সিলেট প্রবাসী নানা সংগঠন এ ব্যাপারে স্থানীয় এমপি সহ বিভিন্ন স্থরে লিয়াজো ও লন্ডনে সভা সমাবেশ করে অফিস ফিরিয়ে আনার দাবী জানাতে থাকেন। সেই সাথে ১০,০০০ হাজার সিগনেচারের টার্গেট নিয়ে হোম অফিসে আবেদনের জন্য পিটিশন অনলাইনে চালু করেন। টার্গেট ফুল হয়ে সিগনেচার ১১,০০০ গিয়ে উঠে। হোম অফিস এহেন অবস্থায় পিটিশনের জবাব দিতে বাধ্য হেতু গত ৬ই ফেব্রুয়ারি তাদের জবাব বা সিদ্ধান্ত জানিয়ে সিগনেচার যারা করেছিলেন তাদের ইমেইলে পাঠিয়ে দেয়। উল্লেখ্য প্রথা অনুযায়ী ১০,০০০ সিগনেচার হলে হোম অফিস সাধারণতঃ রিপ্লাই ও রিভিউ করে থাকে। আর ১০০,০০০ সিগনেচারের পিটিশন হলে পার্লামেন্টে সেটা নিয়ে বিতর্ক হয়ে থাকে। এটাই নিয়ম, এটাই প্রথা।

৬ই ফেব্রুয়ারি হোম অফিস পিটিশনের জবাবে জানিয়েছে, ভিসা অফিস স্থানান্তরের সময় যে ব্যাখ্যা তারা দিয়েছিলো অবিকল একই ব্যাখ্যা শুধু তারিখ চেঞ্জ করে তারা জানিয়েছে, দিল্লী থেকে ভিসা অফিস স্থানান্তরিত করার চিন্তা নেই। এই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হবেনা। কেননা, খরচ ও অন্যান্য এবং ট্যাক্স পেয়ারদের স্বচ্ছতার স্বার্থেই এমন সিদ্ধান্ত। আর রিজিওনাল ছোট এমন অফিস বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকেও ভিসা অফিস স্থান্তরিত করে বড় রিজিওনাল অফিসে নেয়া হয়েছে- তাদের রিজিওনাল হাব এর নিয়মে।

হোম অফিস আরো জানিয়েছে, প্রচলিত নিয়মে যেভাবে বাংলাদেশে দুতিনটি ভিসা সেন্টারের মাধ্যমে আবেদন পত্র জমা নেয়া হয়ে থাকে সেই সেবা বাংলাদেশে চালু থাকবে।

হোম অফিস তাদের এই স্থানান্তরের অভিজ্ঞতার আলোকে জানিয়েছে, নন-সেটেলম্যান্ট ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে ১১ কার্যদিবস আর সেটেলম্যান্ট ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে ৩৭ কর্ম দিবস লাগছে- তাদের এই প্ল্যান ওয়ার্কিং করছে।ভিসা প্রসেসিং এ তাদের সময় আগের চেয়ে কম লাগছে। সেকারণেও তারা তাদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবেনা।

হোম অফিস আরো জানিয়েছে, ঢাকা হাই কমিশনে তাদের স্টাফ কাজে থাকবে এবং সকল পাসপোর্ট বাংলাদেশেই থাকে বলে জানিয়েছে।

পিটিশনে হোম অফিসের জবাব এর লিংক-

https://petition.parliament.uk/petitions/105738?reveal_response=yes

Closed petitionReinstate full visa service at the British High Commission in Dhaka, Bangladesh

From 1 October 2014, all UK visa applications submitted in Bangladesh have been assessed at the Visa Section at the British High Commission in New Delhi, rather than at the British High Commission in Dhaka. This has caused delays and difficulties for applicants applying for UK visas from Bangladesh.

This petition is closedAll petitions run for 6 months

11,054 signatures

100,000

Government responded

There has been no change to the application process or service standards for customers applying for a UK visa in Bangladesh since the move of decision making to Delhi.

UK Visas and Immigration (UKVI) moved decision making on Bangladeshi visa applications to the British High Commission in Delhi in September 2014.

This move was in line with UKVI’s overall strategy to modernise how UK visa applications are processed to ensure that decisions are safe and secure, that excellent customer service is provided, and that value for money is delivered for the taxpayer.

There has been no change to the process for customers in Bangladesh applying for a UK visa. Customers are still able to make visa applications in the two Visa Application Centres in Bangladesh and access a range of premium services such as a 3-5 working day priority visa service. UKVI continues to retain a team of staff in the High Commission in Dhaka, and all passports are retained in Bangladesh.

Visa applications are also processed under the same global customer service standards. The average turnaround times for applications decided in 2015 were 11 working days for non-settlement applications and 37 working days for settlement applications, well within the published service standards of 15 working days for non-settlement and 60 working days for settlement applications.

From as early as 2006, the international operation has been moving towards a consolidated ‘hub and spoke’ model. As well as reducing costs, making decisions on larger numbers of cases in regional hubs increases resilience and improves security. This model allows flexibility in reacting to changes in demand; and improves decision quality, by standardising decisions and allowing UKVI to share intelligence across regions.

Only a small proportion of applications worldwide are now decided in the same city where they were lodged. Moving work from smaller more expensive locations to more stable regional hubs has created a visa network that is more flexible and responsive.

Home Office

At 100,000 signatures…

At 100,000 signatures, this petition will be considered for debate in Parliament

[email protected]

29 Feb 2016,London

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here