প্রচ্ছদ কবিতা উদয় শংকর দুর্জয়ের গুচ্ছ কবিতা

উদয় শংকর দুর্জয়ের গুচ্ছ কবিতা

829
0
SHARE

ম্লান অরুণালোয় নক্ষত্রের স্বরলিপি

রুপশালি ধানের ঘ্রাণ শুকে কোন ধনেশ পাখি
গড়েছিল আবাস – তার জন্য লিখেছিলে
নক্ষত্রের স্বরলিপি ম্লান অরুণালোয়। আরও
একশ বছর তুমি লিখে যাচ্ছ হেমন্তালয়ে
ঝরা পাতার নিরুপমা চিঠি। লাবণ্যময়ী সন্ধ্যা
দাঁড়ালে উঠনে, মুছে ফেলে রোদ্দুরের লয়
ভেজা মেঘ খুঁজে ন্যায় ধানসিঁড়ির শ্যাওলা শরীর।
ধূসর গোধূলি থেমে গেল। পারাবাত মেঘালয়
ছড়িয়ে দিয়ে গেল স্নাত জ্যোৎস্নার ফুল।
শ্রাবস্তীর মায়া জড়িয়ে নিতেই
অবারিত ঝাউয়ের উদ্যান গাইল
সবুজ বেহালায় গৃহত্যাগীর গান। অদ্ভুত আঁধারে
জমিয়ে অভিমান। নিঃশ্বাসের তরঙ্গে ফেলে গেলে
দিক ভুলো ট্রামের ক্ষুধার্ত কুয়াশা সমাচার।

পরাগ মাখা শাশ্বত বিকেল

…তবু
শীত ঝরা বিকেল গুলো অন্যরকম ছিল, বসন্ত আগমনী ভাব ছিল। দুমড়ে মুচড়ে যাওয়ায়
পলাশ পরাগ – উড়তে উড়তে

রাজপথ পেরিয়ে যেতে চাইলে – এক ঝাঁক শকুন শ্যেন দৃষ্টি ছড়ায়। বাতাসের শরীরে
আটকে যায় তাপের দগ্ধ ছোঁয়া।

এখন ভোর হলে নিঃসঙ্কোচে বেরিয়ে পড়ে মুঠো ভরা ফুলেল শৈশব, মায়াবী ঘাসের রং
মেখে হেঁটে যায় স্নাত শিশির। প্রভাত ফেরীর সুর গুঞ্জন আত্মার শ্রান্তি গুলো লিখে রাখে
আরেকটি অধ্যায়ের সৃজনলিপি।
অধ্যায় পার হতে হতে পাণ্ডুলিপি খুঁড়ে বেরিয়ে পড়ে শাশ্বত ইতিবৃত্ত। মুঠোভরা সূর্যগুড়ো
উড়ে যায় শ্রান্তির চূড়োয়। অবনত মনের দেয়াল সাদা বক ছড়িয়ে দিয়ে যায় প্রশান্তির
হিমেল আলোছায়া।

কলম ও কালের খেয়া

পাল্টে গেছে আমাদের জীবন জলছবি বাতায়ন
ফিকে হয়ে গেছে অর্জনের সবকটি রং ধূসর ছায়ায়।
জাতি পার করছে বিভীষিকাময় ক্রান্তিকাল। এতটি বছর
পরেও হেরে যায় মুক্তি সন্তানেরা, হেরে যায় রাত-জাগানিয়া পাখি।
মৃত্যুশঙ্কায় সিকদাররা ডায়রির পাতা খুঁড়ে
আবিষ্কার করে কঠিন পারদ খাঁচা।
সিকদাররা হেরেছিল একাত্তরে, হেরে যাচ্ছে
দুই হাজার পনেরতে তবু পঙ্গু স্বপ্ন নিয়ে
যন্ত্রণার আকাশ পাড়ি, মেঘলা নামে ফরিদপুরের
ভূ-ম-লে। বিত্তজনেরা ভেঙে দেয় কালের খেয়া
স্তব্ধ করে দেয় আস্তিনে জমা চৌদ্দটি হৃৎপিণ্ডের
প্রতিবাদী মিছিল।
অধিকার নয় টিকে থাকার প্রত্যয় মুঠোবন্দি করে
পথে নেমেছে সিকদার। একাত্তরের মুখোশধারী
পশুরা পাল্টে নিয়েছে বেশ, মেহেদিকেশে আর
ধর্মের দলিলে লিখিয়েছে নাম। ওরাই ছিল
চাটুকর দালাল লুটকারী, ওরাই ছিল আতঙ্কের
ভয়ার্ত জনপদ। ওরাই নিয়েছে শপথ, যুদ্ধাভরণ
লাগিয়ে সেজেছে, বকধার্মিক। ওরা এখন
সমাজের বেপরোয়া শকুন, ওরা এখন লুকিয়ে নিয়েছে
বিষাক্ত নখ, হিংস্র রক্তচোখ। তবু ওরাই
শাসনের শপথ পাঠক শোষণের দলিল লেখক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here